Read In
Whatsapp
Advertisement

30,000 টাকা দিয়ে ঘরে আনুন নতুন R15 বাইক! পাবেন জম্পেশ ফিচার্স ও বাম্পার পারফরম্যান্স

নতুন Yamaha R15 বাইকের সামনে পাত্তা পাবেনা KTM বা Pulsar, নেক্সট জেনারেশন এই মডেলে আছে একাধিক স্মার্ট ফিচারস

Published By: Ritwik | Published On:
Advertisements

বাজারে নতুন R15 লঞ্চ করেছে Yamaha। নয়া ডিজাইন ল্যাঙ্গুয়েজ আরো বেশি স্পোর্টি এবং সেইসাথে অনেক বেশি অ্যাগ্রেসিভ। বাইকটিতে ডিজাইনের সাথে যোগ্য সঙ্গত রূপে রয়েছে শক্তিশালী ইঞ্জিন। বাইকটির নতুন ভার্সন প্রতিযোগীদের অনেকখানি পিছনে ফেলেছে। চলুন দেখে নেওয়া যাক কেমন কি ফিচারসের সাথে এসেছে Yamaha R15 V4।

Advertisements

ইঞ্জিন : ইয়ামাহা R15 ডার্ক এডিশন 2023 এ বাইকে রয়েছে 155সিসির সিঙ্গেল-সিলিন্ডার লিকুইড-কুলড ইঞ্জিন। যেটি কিনা 18.4PS শক্তি এবং 14.2Nm টর্ক জেনারেট করে। 6-গতির গিয়ারবক্সের সাথে বাজারে লঞ্চ হয়েছে বাইকটি। গাড়িটির অ্যারোডায়নামিক ডিজাইন ল্যাঙ্গুয়েজ বাইকের আবেদন বাড়ানোর সাথে সাথে উচ্চগতিতেও বেশ সাহায্য করবে।

#Recommended
Aprilia RS 457 : ভারতে তৈরি স্পোর্টস বাইক রপ্তানী হচ্ছে ইংল্যান্ডে, দু
Honda বা TVS নয়, এবার বাজার কাঁপাচ্ছে Hero-র নতুন Xtreme 125R! কমিউটা
20 হাজারেই মিলবে নয়া Gixxer, এই উপায়ে আজই বাড়িতে নিয়ে আসুন নতুন বা
Activa এবং Jupiter এর বাজার দখল করতে আসছে Yamaha-র নতুন ম্যাক্সি ডিজাই
KTM কে ধুলোয় মিশিয়ে দেবে Yamaha-র এই বাইক, বাজেট অপশনে পেয়ে যাচ্ছেন
বাজারে এল Pulsar N150 এবং N160 এর নতুন ভার্সন, দেখুন কত দামে বাইক লঞ্চ
Activa বা Jupiter নয়, নতুন বছরে বাজার দখল করতে চলেছে Yamaha-র নতুন ম্
কমিউটার সেগমেন্টে সেরা হিরোর নতুন Xtreme 125R, থাকছে শক্তিশালী ইঞ্জিন
মারুতি বা টাটা নয়, ভারতের রাস্তায় ধুম মা নতুন এই গাড়ি, খরচ মাত্র 12
KTM বা Pulsar নয়, নতুন বছরে বাজারে ধামাল মাচাবে Yamaha এর নতুন বাইক

ফিচারস: স্পোর্টি ডিজাইনের ওয়ান প্রজেকশন LED পজিশন লাইট, সাইড স্ট্যান্ড ইঞ্জিন কাট-অফ সুইচ,ক্লিপ-অন হ্যান্ডেলবার, সম্পূর্ণ ডিজিটাল LCD মিটার কনসোল, ট্র্যাকশন কন্ট্রোল সিস্টেম ইত্যাদির সমর্থন পাবেন আপনি। TFT ইন্সট্রুমেন্ট কনসোলের মাধ্যমে ব্লুটুথ কানেকশনও পেয়ে যাবেন আপনি। এছাড়া ডে-নাইট মোড, গিয়ার পজিশনিং ইন্ডিকেটর এবং পার্কিং লোকেশনের মতো বৈশিষ্ট্যগুলিও থাকছে সেখানে। 

নিরাপত্তা: Yamaha R15 Dark Edition 2023-এ সামনে USD ফর্ক আপফ্রন্ট এবং মনোশক রিয়ার সাসপেনশন সেটআপ রয়েছে। গাড়িতে ব্রেকিংয়ের জন্য 282 মিমি ফ্রন্ট ডিস্ক এবং 220 মিমি রিয়ার ডিস্ক ব্রেক দেওয়া হয়েছে। ডুয়াল চ্যানেল ABS থাকছে সেখানে।

মাইলেজ: ARAI দ্বারা নির্ধারিত 55 কিমি মাইলেজ পেয়ে যাচ্ছেন আপনি।

দাম: গাড়িটির এক্স শোরুম দাম শুরু হচ্ছে 1.82 লক্ষ টাকা থেকে। কিন্তু টপ ভেরিয়েন্টের জন্য 1.96 লক্ষ টাকা (Ex-showroom) দিতে হবে।

ফাইন্যান্স প্ল্যান: গাড়িটি 30 হাজার টাকায় কিনতে হলে ফাইন্যান্স প্ল্যানের সাহায্য নিতে হবে। এক্ষেত্রে বেস ভার্সন কিনতে চাইলে সেটির অন রোড দাম পড়বে 2.07 লক্ষ টাকা। সেক্ষেত্রে 30,000 টাকা ডাউন পেমেন্ট করে বাকি টাকা 3 বছরের জন্য ঋণ নিতে হবে। 9.7% বার্ষিক সুদ সমেত মাসিক EMI খরচ পড়বে মাত্র 5,415 টাকা।