Read In
Whatsapp
Advertisement

সদ্য আসা Royal Enfield Himalayan কে জোর টক্কর দিচ্ছে Yezdi Adventure, কিন্তু কে জিতবে মুখোমুখি সংঘাতে?

Royal Enfield Himalayan সদ্যই এসেছে বাজারে। গোয়াতে অনুষ্ঠিত Motoverse ইভেন্টে বাইকটি পুরোপুরি ভাবে আত্মপ্রকাশ করে। অফিসিয়াল লঞ্চের সাথে সাথে, কোম্পানি অ্যাডভেঞ্চার-ট্যুরার বাইকটির দামও প্রকাশ করেছে। মডেলটির ডেলিভারি শুরু হয়েছে দেশব্যাপী।…

Published By: Ritwik | Published On:
Advertisements

Royal Enfield Himalayan সদ্যই এসেছে বাজারে। গোয়াতে অনুষ্ঠিত Motoverse ইভেন্টে বাইকটি পুরোপুরি ভাবে আত্মপ্রকাশ করে। অফিসিয়াল লঞ্চের সাথে সাথে, কোম্পানি অ্যাডভেঞ্চার-ট্যুরার বাইকটির দামও প্রকাশ করেছে। মডেলটির ডেলিভারি শুরু হয়েছে দেশব্যাপী। আগ্রহী গ্রাহকরা 10,000 টাকা দিয়ে বাইকটি বুক করতে পারবেন।

Advertisements

#Recommended

নতুন Himalayan 450 বাজারে বড় টক্কর দেবে Triumph Scrambler 400 X, KTM 390 Adventure, BMW G 310 GS, এবং Yezdi Adventure কে। এর আগে বাকি বাইকের সাথে তুলনা করেছি আমরা। আজ Himalayan 450 এর সাথে Yezdi Adventure এর তুলনা করে জানাবো কোন বাইক আপনার জন্য অধিক উপযুক্ত।

Royal Enfield Himalayan Vs Yezdi Adventure

Design

উভয় অ্যাডভেঞ্চার ট্যুর বাইকের স্টাইলিং সম্পর্কে বললে সেখানে ফর্ম-ওভার-ফাংশন ডিজাইন রয়েছে। যদিও হিমালয় বাইকটির Road Presence অনেক বেশি commanding। দুই বাইকেই বড় আকারের জ্বালানী ট্যাঙ্ক সহ বড় উইন্ডস্ক্রিন, স্প্লিট সিট ডিজাইন এবং গোলাকার LED হেডলাইট রয়েছে।

Engine

ইঞ্জিনের ক্ষেত্রে নতুন হিমালয়ান বাইক অনেক বেশি আকর্ষণীয়। দুই বাইকেই লিকুইড-কুলড ইঞ্জিন থাকলেও রয়্যাল এনফিল্ড মডেলের ইঞ্জিন তুলনামূলকভাবে বড়। Yezdi Adventure বাইকটি 29bhp শক্তি উৎপন্ন করে সেখানে Himalayan 450 মোট 39.5bhp শক্তি তৈরি করতে সক্ষম। এছাড়া Yezdi এর ইঞ্জিন যেখানে 29 Nm পিক টর্ক উৎপন্ন করতে সক্ষম সেখানে Himalayan বাইকটির ইঞ্জিন মোট 40Nm টর্ক জেনারেট করে। উভয় মোটরসাইকেলেই একটি স্লিপ-এন্ড-অ্যাসিস্ট ক্লাচ সহ ছয়-স্পীড গিয়ারবক্স রয়েছে।

Features

সদ্য লঞ্চ হওয়া Himalayan বাইকে সি-টাইপ ইউএসবি চার্জিং পোর্ট, অল এলইডি হেডলাইট, মিউজিক প্লেব্যাক, SMS এবং কল অ্যালার্ট, ব্লুটুথ কানেকটিভিটি এবং ইন্টারনাল নেভিগেশন সহ সম্পূর্ণ ডিজিটাল TFT ইন্সট্রুমেন্ট কনসোল এর সুবিধা পাওয়া যায়। সেখানে আপনি গুগল ম্যাপের সুবিধাও রয়েছে। রাইড-বাই-ওয়্যার, ইন্টিগ্রেটেড টার্ন ইন্ডিকেটর, ডুয়াল-পারপাস টেইললাইট, দুটি রাইডিং মোড (পারফরম্যান্স এবং ইকো), এবং একটি Changeable ABS পাওয়া যায় বাইকে।

Yezdi Adventure বাইকেও ফিচারসের কমতি নেই। সেখানে ডুয়াল-চ্যানেল ABS, টার্ন-বাই-টার্ন নেভিগেশন, অল এলইডি লাইট, ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার, ব্লুটুথ কানেকটিভিটি সহ আরও অনেক কিছু পাওয়া যায়। তবে এক্ষেত্রে এগিয়ে সদ্য আশা Himalayan 450।

দাম
তুন Himalayan বাইকের মিড-স্পেক পাস ভেরিয়েন্টের দাম 2.74 লক্ষ টাকা, এন্ট্রি-লেভেল সংস্করণের দাম 2.69 লক্ষ টাকা। টপ স্পেক সামিট মডেলটির দাম 2.84 লক্ষ টাকা (হ্যানলে ব্ল্যাক পেইন্ট) এবং 2.79 লক্ষ টাকা (কামেট হোয়াইট পেইন্ট)।

Yezdi Adventure বাইকের দাম শুরু হচ্ছে 2.16 লক্ষ টাকা থেকে। টপ স্পেক ভেরিয়েন্টের দাম 2.20 লক্ষ টাকা।