Read In
Whatsapp
 Bike News  Car News EV Updates Auto Tips Auto Motive IndustryCeleb's Collection
Advertisement

Low Price Car: টাটা ন্যানো অতীত! গরিবদের জন্য সস্তায় চার চাকা আনল Bajaj, জানুন দাম ও ফিচার

Low Price Car: ভারতের বাজারে প্রতিনিয়ত চাহিদা বেড়ে চলেছে ইলেকট্রিক বাইক এবং ইলেকট্রিক গাড়ির। তবে চাহিদা থাকলেও দাম অনেকটা বেশি হওয়ার কারণে ইচ্ছে থাকলেও কিনতে পারছেন না মধ্যবিত্তরা। তবে এবার…

Additiya Banerjee

Additiya Banerjee

Advertisements

Low Price Car: ভারতের বাজারে প্রতিনিয়ত চাহিদা বেড়ে চলেছে ইলেকট্রিক বাইক এবং ইলেকট্রিক গাড়ির। তবে চাহিদা থাকলেও দাম অনেকটা বেশি হওয়ার কারণে ইচ্ছে থাকলেও কিনতে পারছেন না মধ্যবিত্তরা। তবে এবার কিন্তু মিলল দারুণ সুখবর। গ্রাহকদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে একেবারে কম দামে দেশের বাজারে দুর্ধর্ষ গাড়ি আনার কথা চিন্তা করেছে বেশ কয়েকটি সংস্থা। সেই তালিকাতে রয়েছে Bajaj Qute

whatsapp logo

সবচেয়ে সস্তার গাড়ি (Low Price Car) বললে প্রথমেই যে নামটি মাথায় আসে সেটা হল টাটা ন্যানো (Tata Nano)। সাধ্যের মধ্যে সাধপূরণ। কিন্তু স্বপ্ন পূরণ হয়নি। মধ্যবিত্তের মন সেভাবে জয় করতে পারেনি একলাখি ন্যানো। এবার সেই জায়গা নিতে হাজির Bajaj Qute। দামও কিন্তু একেবারে মধ্যবিত্তের হাতের নাগালে। আর যদি মাইলেজের কথা বলা হয়, তাহলে অন্যান্য গাড়ির তুলনায় অনেকটাই এগিয়ে থাকবে Bajaj এর এই গাড়ি। যদিও দেখতে চার চাকার মতো হলেও Bajaj Qute তে কিন্তু চারটি চাকা নেই। আসলে চার চাকা এবং তিন চাকার মাঝামাঝি কোয়াড্রিসাইকেল নামক একটি নতুন সেগমেন্ট তৈরি করেছে এই সংস্থা। এটি কিন্তু ভারতের প্রথম কোয়াড্রিসাইকেল গাড়ি এবং অটো ট্যাক্সি।

Low Price Car

কোয়াড্রিসাইকেল আসলে কী? (What is a Quadricycle?)

পার্সোনাল কারের থেকে অনেকটাই আলাদা কোয়াড্রিসাইকেল। মূলত তিন এবং চার চাকার সেগমেন্টে রাখা হয় কোয়াড্রিসাইকেলগুলিকে। এগুলি রাস্তায় চলার সময় কোন রকম নিয়ম অনুসরণ করে না।

Bajaj Qute Mileage (মাইলেজ): Bajaj Qute গাড়িটির সর্বোচ্চ গতি 70-80 কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় পাওয়া যাচ্ছে। এর আগে অবশ্য Bajaj Qute এর একটি CNG গাড়ি নিয়ে আসা হয়েছিল ভারতের বাজারে। তবে বর্তমানে যে গাড়িটি রয়েছে সেটি কিন্তু পেট্রোলের পাশাপাশি চলবে CNG এবং LPG তে।

Low Price Car

Bajaj Qute Engine (ইঞ্জিন): Bajaj Qute চার সিটার গাড়ি। অর্থাৎ পার্সোনাল এই গাড়িতে চালক সহ মোট চারজন বসতে পারবেন। গাড়িটির ইঞ্জিন এবং বুট স্পেস আকৃতিতে অনেকটাই বড়। গ্রাহকরা এই গাড়িতে পেয়ে যাবেন 216.6 সিসি ফোর স্ট্রোক, সিঙ্গল সিলিন্ডার, লিকুইড কুলড ইঞ্জিন। এই ইঞ্জিন 13.1 পিএস পাওয়ার এবং 18.9 এনএম টর্ক জেনারেট করতে সক্ষম। রয়েছে 5 স্পিড ম্যানুয়াল ট্রান্সমিশন। এয়ার কন্ডিশন থেকে শুরু করে এয়ারব্যাগ, ডিস্ক ব্রেক, পাওয়ার স্টিয়ারিংএর মতো যাবতীয় বৈশিষ্ট্য রয়েছে এই গাড়িতে। মারুতি ওমনি গাড়ির মতো স্লাইডিং এবং ম্যানুয়াল উইন্ডো রয়েছে। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো এই গাড়ি কিনতে গেলে আমজনতাকে পকেট থেকে খসাতে হবে মাত্র 2.63 হাজার টাকা। এক্স শোরুমে এই দামি মিলছে গাড়ি।

About Author
Additiya Banerjee
Additiya Banerjee

I'm Additiya, I love taking complex ideas and turning them into clear, interesting reads. I've been at it for a few years now, and I'm always learning and growing.

SHARE